Home / 2017 / November / 06

Daily Archives: November 6, 2017

শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের অপেক্ষা করছে জাতি ।

খাদ্যমন্ত্রী এ্যাড. মোঃ কামরুল ইসলাম বলেছেন, কোন অশুভ শক্তি যেন ২০১৮ সালের নির্বাচনকে নিয়ে কোন টালবাহানা করতে না পারে সেদিকে সকলকে সজাগ থাকতে হবে। কারণ একটি শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের জন্য সমগ্র জাতি অপেক্ষা করছে।

রবিবার কুমিল্লা বীরচন্দ্র নগর মিলনায়তনে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ, জেলা প্রশাসন ও খাদ্য বিভাগের আয়োজনে নিরাপদ খাদ্য আইন ২০১৩ বাস্তবায়নে জনসচেতনতা শীর্ষক এক কর্মশালায় তিনি এসব কথা বলেন।
খাদ্যমন্ত্রী বলেন, আগামী ২০১৮ সালে দেশে একটি সুষ্ঠু, সুন্দর ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। দেশের সংবিধান মোতাবেক নির্বাচন কমিশনার ২০১৮ সালের জাতীয় নির্বাচনের আয়োজন করবেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের মহাসড়কে। একটি নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে আওয়ামী লীগ সরকার আবার ক্ষমতায় এসে দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখবে।

কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মো: জাহাংগীর আলমের সভাপতিত্বে কর্মশালা বিশেষ অতিথি ছিলেন খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সম্পর্কিত সংসদীয স্থায়ী কমিটির সভাপতি মো: আব্দুল আব্দুল ওয়াদুদ দারা এমপি, কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার, বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মাহফুজুল হক, খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো: বদরুল হাসান, কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার মো: শাহ আবিদ হোসেন, কুমিল্লা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রিয়াল এডমিরাল আবু তাহের, কুমিল্লা জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মোঃ ফারুক হোসেন, কুমিল্লা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মনিরুজ্জামান তালুকদার ও কুমিল্লা সদর উপজেলার চেয়ারম্যান এড. আমিনুল ইসলাম।

সাত ঘণ্টার ভিতর অপহৃত শিশু উদ্ধার

রাজধানীর গুলশানে পুলিশ প্লাজা থেকে শিশু তাওসিফের অপহরণের সঙ্গে একটি সংঘবদ্ধ চক্র জড়িত। অপহরণের সাত ঘণ্টা পর শিশুটিকে উদ্ধার করে আজ (রোববার) ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে ব্রিফিংয়ে একথা জানায় গোয়েন্দা পুলিশ। অপহরণকারী চক্রের তিন সদস্যকেও আটক করা হয়েছে। গত শুক্রবার সন্ধ্যায় গুলশানের পুলিশ প্লাজা থেকে অপহরণ করা হয় শিশুটিকে।

গত ৩ নভেম্বর শুক্রবার সন্ধ্যার পর বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের কর্মকর্তা মোহাম্মদ মোমিন আহমেদ পাটোয়ারী তার স্ত্রী নাজমুন আক্তার এবং শিশু তাওসিফুর রাহিমকে নিয়ে পুলিশ প্লাজায় কেনাকাটা করতে যান। এরপর হঠাৎ সন্তানকে খুঁজে না পেয়ে শপিং মলের পুলিশকে জানান মোমিন আহমেদ।তার গ্রামের বাড়ি লক্ষ্মীপুর জেলার, রায়পুর ।

এই সুযোগকে কাজে লাগায় মার্কেটে আগে থেকে ওত পেতে থাকা সংঘবদ্ধ তিন সদস্যের এই অপহরণকারী চক্র। শিশুটিকে প্রলোভন দেখিয়ে অপহরণ করে তারা। তবে অভিযানের প্রথম সফলতা এনে দেয় অপহৃত শিশু তাওসিফ নিজেই। অপহরণ করার পর তারা শিশুটির কাছ থেকে তার বাবার ফোন নম্বর নিয়ে ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। তাওসিফ তার বাবার ফোন নম্বর মনে রাখতে পেরেছিল বলেই তার বাবার সঙ্গে যোগাযোগ করে অপরাধীরা। এর ফলে অপহরণকারীদের শনাক্তে পুলিশের প্রাথমিক কাজটি করে দেয় তারা।

ডিএমপির উত্তর মহানগর গোয়েন্দা বিভাগের উপকমিশনার শেখ নাজমুল আলম বলেন, অপহরণকারী চক্র আগে থেকেই অপহরণ করার জন্য অত:পেতে বসে ছিল। বাচ্চাটা যখন বাবা-মায়ের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাই, ঠিক তখনই অপহরণকারীরা তাকে এটা সেটা বলে তার হাত ধরে বাইরে নিয়ে যাই। আমরা তা সিসি ক্যামেরায় দেখতে পাই। এবং যাকে সিসি ক্যামেরাই দেখা গিয়েছে তাকে আমরা গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি।

অভিযোগ দাখিলের পরপরই গুলশান ও মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ উত্তর বিভাগের যৌথ টিমের অভিযানে ৪ নভেম্বর শনিবার তেজগাঁও মধ্যকুনি পাড়া থেকে অপহৃত শিশুকে উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও অপহরণ মামলা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।