Home / 2017 / November

Monthly Archives: November 2017

উপমন্ত্রীর পদমর্যাদা পেলেন সেলিনা হায়াৎ আইভী।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীকে উপমন্ত্রীর পদমর্যাদা দিয়েছে মন্ত্রিসভা। গত কাল মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে । এতে বলা হয়, সেলিনা হায়াৎ আইভী নিজ পদে অধিষ্ঠিত থাকাকালীন উপমন্ত্রীর পদমর্যাদা, বেতন-ভাতা ও আনুষঙ্গিক অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা পাবেন।

গত ২২ ডিসেম্বর ২০১৬ নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। ভোটে আওয়ামী লীগ-সমর্থিত প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী জয়লাভ করে মেয়র নির্বাচিত হন।

এর আগে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আনিসুল হক এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকনকে মন্ত্রীর মর্যাদা দেওয়া হয় ।

সমাবেশ করার অনুমতি চেয়ে নতুন করে চিঠি দিয়েছে বিএনপি।

কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশনের (সিপিএ) সম্মেলনের কারণে সমাবেশের তারিখ পেছানো হয়েছে বলে জানিয়েছে বিএনপি।

গত কাল সোমবার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, তাদের জানানো হয়েছে যে সংসদ এলাকায় কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশন সম্মেলন চলছে। সম্মেলন যেন নির্বিঘ্নে হয়, সে জন্য ৮ নভেম্বরের সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের কর্মসূচি পেছানো হয়েছে। ১১ নভেম্বর এ সমাবেশ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুষ্ঠিত হবে। এ ব্যাপারে তাঁরা পুলিশকে চিঠি দিয়েছেন।

রিজভী বলেন, আগামীকাল মঙ্গলবার ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস’ উপলক্ষে শেরেবাংলা নগরে দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবরে সকাল ১০টায় দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া নেতা-কর্মীদের নিয়ে শ্রদ্ধা জানাবেন।

সম্মেলনের কারণে সংসদ ভবন এলাকায় সভা-সমাবেশে নিষেধাজ্ঞা থাকায় ওই কর্মসূচি হবে কি না, সাংবাদিকের এ প্রশ্নের জবাবে রিজভী বলেন, ‘আমরা কথা বলছি, আশা করছি যে অনুমতি পেয়ে যাব।

সংবাদ সম্মেলনে রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করেন, বিএনপির সাম্প্রতিক বিভিন্ন কর্মসূচিতে মানুষের ঢল দেখে সরকার ভীত হয়ে আবারও দেশব্যাপী গণগ্রেপ্তার শুরু করেছে এবং প্রতিদিন কোনো না কোনো জেলায় ,উপজেলায় এমন কি ইউনিয়ন গুলো তে ও মামলা ছাড়াই নেতা-কর্মীদের আটক করে পরে মিথ্যা মামলা দেওয়া হচ্ছে। বর্তমান সরকারের দুঃশাসনে জনগণ অতিষ্ঠ।
বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আতাউর রহমান ঢালী, আবদুস সালাম, আবুল খায়ের ভূঁইয়া, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি এই সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ।

শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের অপেক্ষা করছে জাতি ।

খাদ্যমন্ত্রী এ্যাড. মোঃ কামরুল ইসলাম বলেছেন, কোন অশুভ শক্তি যেন ২০১৮ সালের নির্বাচনকে নিয়ে কোন টালবাহানা করতে না পারে সেদিকে সকলকে সজাগ থাকতে হবে। কারণ একটি শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের জন্য সমগ্র জাতি অপেক্ষা করছে।

রবিবার কুমিল্লা বীরচন্দ্র নগর মিলনায়তনে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ, জেলা প্রশাসন ও খাদ্য বিভাগের আয়োজনে নিরাপদ খাদ্য আইন ২০১৩ বাস্তবায়নে জনসচেতনতা শীর্ষক এক কর্মশালায় তিনি এসব কথা বলেন।
খাদ্যমন্ত্রী বলেন, আগামী ২০১৮ সালে দেশে একটি সুষ্ঠু, সুন্দর ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। দেশের সংবিধান মোতাবেক নির্বাচন কমিশনার ২০১৮ সালের জাতীয় নির্বাচনের আয়োজন করবেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের মহাসড়কে। একটি নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে আওয়ামী লীগ সরকার আবার ক্ষমতায় এসে দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখবে।

কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মো: জাহাংগীর আলমের সভাপতিত্বে কর্মশালা বিশেষ অতিথি ছিলেন খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সম্পর্কিত সংসদীয স্থায়ী কমিটির সভাপতি মো: আব্দুল আব্দুল ওয়াদুদ দারা এমপি, কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার, বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মাহফুজুল হক, খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো: বদরুল হাসান, কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার মো: শাহ আবিদ হোসেন, কুমিল্লা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান রিয়াল এডমিরাল আবু তাহের, কুমিল্লা জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মোঃ ফারুক হোসেন, কুমিল্লা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মনিরুজ্জামান তালুকদার ও কুমিল্লা সদর উপজেলার চেয়ারম্যান এড. আমিনুল ইসলাম।

সাত ঘণ্টার ভিতর অপহৃত শিশু উদ্ধার

রাজধানীর গুলশানে পুলিশ প্লাজা থেকে শিশু তাওসিফের অপহরণের সঙ্গে একটি সংঘবদ্ধ চক্র জড়িত। অপহরণের সাত ঘণ্টা পর শিশুটিকে উদ্ধার করে আজ (রোববার) ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে ব্রিফিংয়ে একথা জানায় গোয়েন্দা পুলিশ। অপহরণকারী চক্রের তিন সদস্যকেও আটক করা হয়েছে। গত শুক্রবার সন্ধ্যায় গুলশানের পুলিশ প্লাজা থেকে অপহরণ করা হয় শিশুটিকে।

গত ৩ নভেম্বর শুক্রবার সন্ধ্যার পর বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের কর্মকর্তা মোহাম্মদ মোমিন আহমেদ পাটোয়ারী তার স্ত্রী নাজমুন আক্তার এবং শিশু তাওসিফুর রাহিমকে নিয়ে পুলিশ প্লাজায় কেনাকাটা করতে যান। এরপর হঠাৎ সন্তানকে খুঁজে না পেয়ে শপিং মলের পুলিশকে জানান মোমিন আহমেদ।তার গ্রামের বাড়ি লক্ষ্মীপুর জেলার, রায়পুর ।

এই সুযোগকে কাজে লাগায় মার্কেটে আগে থেকে ওত পেতে থাকা সংঘবদ্ধ তিন সদস্যের এই অপহরণকারী চক্র। শিশুটিকে প্রলোভন দেখিয়ে অপহরণ করে তারা। তবে অভিযানের প্রথম সফলতা এনে দেয় অপহৃত শিশু তাওসিফ নিজেই। অপহরণ করার পর তারা শিশুটির কাছ থেকে তার বাবার ফোন নম্বর নিয়ে ১০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। তাওসিফ তার বাবার ফোন নম্বর মনে রাখতে পেরেছিল বলেই তার বাবার সঙ্গে যোগাযোগ করে অপরাধীরা। এর ফলে অপহরণকারীদের শনাক্তে পুলিশের প্রাথমিক কাজটি করে দেয় তারা।

ডিএমপির উত্তর মহানগর গোয়েন্দা বিভাগের উপকমিশনার শেখ নাজমুল আলম বলেন, অপহরণকারী চক্র আগে থেকেই অপহরণ করার জন্য অত:পেতে বসে ছিল। বাচ্চাটা যখন বাবা-মায়ের থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাই, ঠিক তখনই অপহরণকারীরা তাকে এটা সেটা বলে তার হাত ধরে বাইরে নিয়ে যাই। আমরা তা সিসি ক্যামেরায় দেখতে পাই। এবং যাকে সিসি ক্যামেরাই দেখা গিয়েছে তাকে আমরা গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছি।

অভিযোগ দাখিলের পরপরই গুলশান ও মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ উত্তর বিভাগের যৌথ টিমের অভিযানে ৪ নভেম্বর শনিবার তেজগাঁও মধ্যকুনি পাড়া থেকে অপহৃত শিশুকে উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও অপহরণ মামলা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

রোহিঙ্গাদের দ্রুত ফিরিয়ে নিতে কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর প্রতি চাপ সৃষ্টির আহবান ; প্রধানমন্ত্রীর

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোকে রোহিঙ্গা নাগরিকদের উপর নির্যাতন বন্ধ করতে এবং বলপ্রয়োগের মাধ্যমে বাস্তুচ্যুত হয়ে বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমার সরকারের উপর চাপ প্রয়োগের আহবান জানিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর উদ্দেশ্যে বলেন, ‘মিয়ানমারকে তার নাগরিকদের উপর নির্যাতন বন্ধ করতে এবং বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে চাপ প্রয়োগ করুন। প্রধানমন্ত্রী এবং সিপিএ ভাইস পেট্রন শেখ হাসিনা আজ সকালে জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় ৬৩ তম কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি কনফারেন্স’র (সিপিসি) উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির ভাষণে একথা বলেন। শেখ হাসিনা বলেন, মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে সাময়িকভাবে আমরা এই বিপুলসংখ্যক রোহিঙ্গা নাগরিককে আশ্রয় দিয়েছি। তিনি বলেন, তাঁর সরকার ‘সকলের সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারও সঙ্গে বৈরিতা নয় – এই নীতির ভিত্তিতে প্রতিবেশি দেশসমূহের সঙ্গে সব সময়ই সুসম্পর্ক জোরদার করার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। এরফলে ভারতের সঙ্গে গঙ্গা নদীর পানি-চুক্তি এবং স্থল সীমানা চুক্তি সম্পাদনের মাধ্যমে দীর্ঘদিনের বিরোধের শান্তিপূর্ণ নিষ্পত্তি সম্ভব হয়েছে। একইভাবে মিয়ানমার এবং ভারতের সঙ্গে সমুদ্রসীমা নির্ধারণ করাও সম্ভব হয়েছে। শেখ হাসিনা বলেন, মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর উপর অমানবিক নির্যাতন এবং তাদের জোরপূর্বক বিতাড়িত করে দেওয়া শুধু এ অঞ্চলে নয়, এর বাইরেও অস্থিরতা তৈরি করছে।

সাম্প্রতিককালে মিয়ানমার সরকারের প্রতিহিংসার শিকার হয়ে সে দেশের ৬ লাখ ২২ হাজারেরও বেশি নাগরিক বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। ১৯৭৮ সাল থেকে বিভিন্ন সময়ে আরও প্রায় ৫ লাখ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠি সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশে পালিয়ে এসে আশ্রয় নিয়েছে। তিনি বলেন, আপনাদের অনুরোধ জানাবো রোহিঙ্গা ইস্যুটি বিশেষ গুরুত্বের সঙ্গে আলোচনা করুন। মিয়ানমারকে তার নাগরিকদের উপর নির্যাতন বন্ধ করতে এবং বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে চাপ প্রয়োগ করুন। জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস নির্মূলে একযোগে কাজ করার জন্য প্রধানমন্ত্রী কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর প্রতি তাঁর সরকারের অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করে বলেন, কিছু মানুষের অপরিণামদর্শী কর্মকান্ডের ফলে নিরীহ মানুষের প্রাণ যাচ্ছে।

জঙ্গিবাদ আজ আর কোন নির্দিষ্ট দেশের সমস্যা নয়, এটি বৈশ্বিক সমস্যায় পরিণত হয়েছে। শেখ হাসিনা বলেন, কয়েকদিন আগেই নিউইয়র্কের রাস্তায় ট্রাক উঠিয়ে ৮ জন নিরীহ মানুষকে হত্যা করা হয়েছে। আমাদের সকলকে ঐক্যদ্ধভাবে জঙ্গিবাদ সমস্যার মোকাবিলা করতে হবে। সিপিএ চেয়ারপার্সন এবং জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন। সিপিএ মহাসচিব আকবর খান, কমনওয়েলথের যুব প্রতিনিধি আইমান সাদিক এবং সিপিএ কোষাধ্যক্ষ ভিকি ডানও অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে কমনওয়েলথ’র প্রধান হিসেবে সিপিএ পেট্রন রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের বাণী পড়ে শোনান কমনওয়েলথ সচিবালয়ের মহাসচিব প্যাট্রিসিয়া স্কটল্যান্ড। অনুষ্ঠানে শিল্পকলা একাডেমী এবং নৃত্যাঞ্চল শিল্পীগোষ্ঠীর সৌজন্যে বাংলাদেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য,  সংস্কৃতি, পরিবেশ এবং সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রার উপর ভিত্তি করে বাংলাদেশকে তুলে ধরে বেশ কিছু বর্ণাঢ্য প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন করা হয়। জলবায়ুর বিরূপ প্রভাব মোকাবিলার জন্য উন্নত দেশগুলোর পক্ষ থেকে যেসব সহায়তার প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছে সেগুলোর দ্রুত বাস্তবায়ন প্রত্যাশা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জলবায়ুর বিরূপ প্রভাবের ফলে আমরাই সবচেয়ে বেশি ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছি। এ বছর অতিবৃষ্টিসহ কয়েক দফা বন্যার ফলে আমাদের বিশাল জনপদ ভেসে গেছে। ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে ফসলের। জলবায়ুর বিরূপ প্রভাব মোকাবিলার জন্য যেসব সহায়তার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে, সেগুলোর দ্রুত বাস্তবায়ন প্রত্যাশা করছি।

প্রধানমন্ত্রী তাঁর ভাষণে বলেন, এই ঐতিহাসিক নগরী ঢাকায় কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি এসোসিয়েশনের ৬৩তম সম্মেলনের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে পেরে আমি অত্যন্ত আনন্দিত। বাংলাদেশের জনগণ, সরকার এবং তাঁর নিজের পক্ষ থেকে সকল অতিথিকে স্বাগত জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, এ ধরণের আন্তর্জাতিক সম্মেলন গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ ও চর্চার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। তিনি বলেন, জনপ্রতিনিধি হিসেবে আমাদের প্রথম ও প্রধান নৈতিক দায়িত্ব হচ্ছে গণতন্ত্র এবং সংসদীয় গণতান্ত্রিক রীতিনীতি ও প্রতিষ্ঠানকে আরও শক্তিশালী করা এবং এসব রীতিনীতি ও প্রতিষ্ঠানের প্রতি জনগণের পূর্ণ আস্থা তৈরি করা। সিপিএ এবং বাংলাদেশ জাতীয় সংসদ যৌথভাবে, কনটিনিউয়িং টু এনহান্স দ্যা হাই স্ট্যান্ডার্ডস অব পারফরমেন্স অব পার্লামেন্টারিয়ানস’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে এই কনফারেন্সের আয়োজন করেছে। এতে ৫২টি দেশের ১৪৪টি জাতীয় ও ৪৪টি প্রাদেশিক সংসদের স্পিকার, ডেপুটি স্পিকার, সংসদ সদস্যসহ ৫৫০ এর অধিক প্রতিনিধি অংশ নিচ্ছেন। শেখ হাসিনা বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিচক্ষণ ও দূরদৃষ্টিসম্পন্ন সিদ্ধান্তের মাধ্যমে ১৯৭৩ সালে সিপিএ-এর সদস্য হিসেবে অন্তর্ভূক্ত হয় বাংলাদেশ। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৪ সালে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সিপিএ-এর নির্বাহী কমিটির চেয়ারপার্সন নির্বাচিত হন। তিনি বলেন, বিশ্বব্যাপী কমনওয়েলথভূক্ত দেশগুলোর সংসদ সদস্যগণের প্রদত্ত এই স্বীকৃতি বাংলাদেশে গণতান্ত্রিক চর্চা ও মূল্যবোধের স্বীকৃতির একটি প্রামাণিক দলিল।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে গণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থা কায়েমের যে আকাক্সক্ষা এ ভূখ-ের জনগণ লালন করেছিলেন, বহু ত্যাগ তিতীক্ষার বিনিময়ে তা বাস্তবায়িত হয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অগ্রভাগে থেকে এই সংগ্রামে নেতৃত্ব দিয়েছেন। এজন্য তাঁকে পাকিস্তান শাসনামলের ২৪ বছরের মধ্যে প্রায় অর্ধেকটা সময় কারাগারে অন্তরীণ থাকতে হয়েছে। তিনি বলেন, যুদ্ধ বিধস্ত বাংলাদেশকে পুনর্গঠনের কাজে যখন বঙ্গবন্ধু নিমগ্ন ছিলেন, ঠিক তখনই পরাজিত শক্তির দোসররা ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করে। শেখ হাসিনা বলেন, তিনি এবং তাঁর ছোটবোন শেখ রেহানা বিদেশে অবস্থান করায় প্রাণে বেঁচে যান। তাদের দেশে ফিরে আসার পথ রুদ্ধ করা হয়। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার সঙ্গে সঙ্গে হত্যা করা হয় গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থা। শুরু হয় সামরিক স্বৈরশাসনের যুগ। প্রবাসে থাকাবস্থাতেই তিনি গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের সংগ্রামে লিপ্ত হন উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৬  বছর নির্বাসিত জীবন কাটিয়ে ১৯৮১ সালে দেশে ফিরে আসি। জনগণের শাসন ফিরিয়ে আনার সংগ্রামে আমাকেও কম নির্যাতন সহ্য করতে হয়নি। গৃহবন্দী, জেলখানায় আটক থেকে শুরু করে জীবননাশের প্রচেষ্টা করা হয়ে বার বার। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে তাঁর দলের হাজার হাজার নেতাকর্মী নির্যাতনের শিকার হওয়া সত্বেও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম থেকে বিচ্যুত হননি উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, আমরা মনে করি একমাত্র গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থাই মানুষের মৌলিক অধিকারসমূহ ভালোভাবে পূরণ করে উন্নত জীবন নিশ্চিত করতে পারে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, দীর্ঘ ২১ বছর পর বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ১৯৯৬ সালে রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব পায়। আমরা শাসক নই, জনগণের সেবক হিসেবে সাধারণ মানুষের মৌলিক চাহিদা পূরণে আত্মনিয়োগ করি। তিনি বলেন, মাঝখানে ৮ বছর বিরতির পর আমার দল আওয়ামী লীগ ২০০৯ সালে আবারও রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্ব পায়। শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের মূল লক্ষ্য গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থার ভিত শক্তিশালী করার মাধ্যমে ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তোলা। সে লক্ষ্যে আমরা রূপকল্প-২০২১ প্রণয়ন করি। সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনার ভিত্তিতে আমরা আমাদের কর্মসূচিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। বাংলাদেশে তাঁর সরকার একটি দারিদ্র্য ও ক্ষুধামুক্ত, অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক সমাজ গড়ে তোলার জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতীয় সংসদ, বিভিন্ন স্তরের স্থানীয় সরকারসহ আমরা গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে শক্তিশালী করেছি। ইউনিয়ন পর্যায় থেকে শুরু করে উপজেলা, পৌরসভা, সিটি কর্পোরেশন ও জেলা পরিষদে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিগণ দায়িত্ব পালন করছেন। নারীর ক্ষমতায়ন ও লিঙ্গ বৈষম্য নিরসনে আমাদের অবস্থান দক্ষিণ এশিয়ায় শীর্ষে। শেখ হাসিনা বলেন, গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থার অতন্দ্র প্রহরী স্বাধীন এবং শক্তিশালী গণমাধ্যম। বিগত বছরগুলোতে বাংলাদেশের গণমাধ্যম ব্যাপকভাবে বিকশিত হয়েছে। নিশ্চিত করা হয়েছে তাদের অবাধ স্বাধীনতা। মানুষের তথ্যপ্রাপ্তির অধিকার নিশ্চিত করা হয়েছে। এমডিজি বাস্তবায়নের সাফল্যের ধারাবাহিকতায় আমরা এসডিজি বাস্তবায়ন করছি উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের চলমান সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনায় এসডিজি’র বিষয়সমূহ অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশ শান্তি, গণতন্ত্র, উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির পথ ধরে এগিয়ে চলেছে। ইতোমধ্যে আমরা নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশের মর্যাদা লাভ করেছি। আমাদের প্রত্যাশা স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ২০২১ সালে বাংলাদেশ ‘‘মধ্যম আয়ের দেশ’’ এবং ২০৪১ সালে ‘উন্নত সমৃদ্ধ দেশ’ হিসেবে বিশ্ব মানচিত্র মাথা উঁচু করে দাঁড়াবে।

তিনি কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর প্রতি পৃথিবীকে বিশ্ববাসীর জন্য সুখময়, শান্তিপূর্ণ ও সমৃদ্ধ বাসভূমিতে পরিণত করার উদাত্ত আহবান জানান ।

বেগম জিয়া সড়কপথে গিয়েছেন বিশৃঙ্খলা পাকানোর জন্য : ওবায়দুল কাদের

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য সড়কপথে কক্সবাজার গিয়েছেন এ বলে অভিযোগ করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এম পি। তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়া কক্সবাজার বিমানে ও যেতে পারতেন। তিনি ত্রাণ দিতে যাননি, তিনি সড়কপথে গিয়েছেন বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য।

বেগম খালেদা জিয়ার গাড়িবহরে হামলা প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ফেনীতে নাকি আওয়ামী লীগ হামলা করেছে। আওয়ামী লীগ যদি হামলা করে, তাহলে সাংবাদিককে কেন হামলা করবে? বিএনপির কোনো নেতা কেন আহত হলেন না ? বেগম খালেদা জিয়া কেন আহত হলেন না ? তিনি ও তাঁর গাড়ি ও অক্ষত আছেন। আহত হলেন সাংবাদিকরা। সাংবাদিকের ওপর হামলা হলে নিউজটা বড় হবে, দেশে-বিদেশে সাড়া জাগাবে । তার জন্য বিএনপি পরিকল্পিতভাবে এ হামলা করেছে।

গত শনিবার দুপুরে চট্টগ্রামের আনোয়ারায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর প্রয়াত সদস্য আখতারুজ্জামান চৌধুরীর পঞ্চম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত স্মরণসভায় ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন। আনোয়ারা ও কর্ণফুলী উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে উপজেলার হাইলধরে এ স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, যেকোনো পরিস্থিতিতে বিএনপি নির্বাচনে আসবে, এটা আমরা জানি, কারণ এই নির্বাচনে না এলে তাদের অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যাবে। তাদের পরিণতি মুসলিম লীগের মতো সংকুচিত হবে। তা তারা জানে। আন্দোলন করে নির্বাচনে আসতে তারা পারবে না, কারণ বাংলাদেশের জনগণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নে খুশি।

বিএনপিকে একটি এলোমেলো দল বলে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, এটি বাংলাদেশ নালিশ পার্টি। তাদের একেক নেতা একেক কথা বলেন। বিএনপির বুদ্ধিজীবীরাই বলেন এই দল হল হাটুভাঙা, কোমর ভাঙা একটি দল। এ স্মরণসভায় আরও উপস্থিত ছিলেন চন্দনাইশ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম চৌধুরী, পটিয়ার সংসদ সদস্য শামসুল হক চৌধুরী, সাতকানিয়া-লোহাগাড়ার সংসদ সদস্য আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী, ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মাফুজুল হায়দার চৌধুরী ও আনোয়ারা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান তৌহিদুল হক চৌধুরী।

সভায় বক্তারা আওয়ামী লীগের কঠিন দুঃসময়ে আখতারুজ্জামান চৌধুরীর অবদানের কথা স্মরণ করেন।

রোহিঙ্গাদের দ্রুত ফেরত পাঠাতে কমনওয়েলথের সাহায্য চাইবে বাংলাদেশ ।

মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা সকল রোহিঙ্গাদের দ্রুত ফেরত পাঠাতে  শুক্রবার সিপিএ নির্বাহী কমিটির এক বৈঠকের সিপিএ’র চেয়ারপারসন ও বাংলাদেশের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী এই তথ্য জানান।

ঢাকায় কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশন (সিপিএ) এর ৬৩ তম সম্মেলনে আজ ৫ নভেম্বর বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ বিষয়ে কথা বলবেন। তিনি সিপিওভুক্ত দেশগুলোর প্রতিনিধিদের রোহিঙ্গা সংকট সম্পর্কে অবহিত করে এ বিষয়ে সহযোগিতা চাইবেন।

স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, সিপিএ সম্মেলনের এজেন্ডাগুলো আগে থেকেই নির্ধারিত রয়েছে। মূল এজেন্ডায় রোহিঙ্গা ইস্যু ছিল না। তবে বিষয়টি যেহেতু স্বাগতিক বাংলাদেশের জন্য বড় একটি বিষয় এবং এটি আন্তর্জাতিক ইস্যুতেও পরিণত হয়েছে এ কারণে রোহিঙ্গা সংকটের বিষয়টি সম্মেলনে বিশেষ কমপোনেন্ট হিসেবে যোগ করা হয়েছে।

আজ ৫ নভেম্বর সিপিসি (কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি কনফারেন্স ২০১৭) এর ভাইস প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন।

রাজধানীর কাকরাইলের মা ও ছেলেকে নির্মমভাবে খুন!

রাজধানীর কাকরাইলের একটি বাড়িতে মা ও ছেলে নির্মমভাবে খুন হয়েছেন। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় মাগরিবের নামাজের পর রাজমনি ঈশা খাঁ হোটেলের বিপরীত দিকের বাড়ির নিজ ফ্ল্যাটে খুন হন তাঁরা। নিজ ফ্ল্যাটের সামনে সিড়িতে ছেলে ও ঘরের ভেতর মায়ের লাশ পড়ে ছিল। ওই বাড়ির দারোয়ান পুলিশকে খবর দিলে গত রাত সাতটার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। পরে লাশ উদ্ধার করা হয়।

নিহতরা হলেন ওই বাসার গৃহকর্তা আবদুল করিমের স্ত্রী শামসুন্নাহার করিম (৪৩) ও তার ছেলে শাওন (১৮)। শাওনের বাবা আব্দুল করিম ওই ভবনের মালিক এবং তিনি ব্যবসা করেন। কাকরাইলের রাজমণি-ইশা খাঁ হোটেলের বিপরীত পাশে তলা গলির ৭৯/১, মায়াকানন নামের বাসার ৬ তলা একটি ভবনের ৫ তলায় থাকতেন তাঁরা। বাড়ির মালিক ও গৃহকর্তা আবদুল করিম তখন বাসার বাইরে ছিলেন। নিহতদের মধ্যে মা গৃহিণী। পুলিশ বলছে লাশ উদ্ধারের সময় তারা দেখেছেন মায়ের গলাকাটা ছিল আর ছেলের শরীর ছিল রক্তাক্ত। বাসার কাজের মহিলা গৃহকর্মী রাশিদা বেগম (৪৮) বলেন, সন্ধ্যায় তিনি ওই ফ্ল্যাটে কাজের জন্য ঢোকেন। এ সময় শামসুন্নাহার দরজা খুলে দেন। ঘটনার সময় তিনি রান্না ঘরে ছিলেন। কেউ একজন এসে বাইরে থেকে রান্না ঘরের দরজা লাগিয়ে দেয়। এরপর তিনি ‘ম্যাডাম’ শামসুন্নাহারের বাঁচাও বাঁচাও বলে চিৎকার শুনতে পান। কাজের মেয়ে বলেন, বাসার দারোয়ান এসে রান্না ঘরের দরজা খুলে দিলে সে সেখান থেকে বের হন। বাসার দারোয়ান জানান, সিঁড়ি দিয়ে এক ব্যক্তি নিচে নামার সময় তাঁকে বলেছেন, গিয়ে দেখেন ৫ তলায় ঝামেলা হচ্ছে। তিনি ৫ তলায় গিয়ে দেখেন ফ্ল্যাটের সিড়ি ও ভেতরে দু জনের লাশ পড়ে আছে।

পুলিশের কর্মকর্তারা বলছেন, ঘটনা সম্পর্কে জানতে বাসার দারোয়ান ও কাজের মেয়েকে থানায় নেয়া হয়েছে। রমনা থানার ওসি কাজী মাঈনুল বলেন, ওই বাসায় মরদেহ পড়ে থাকার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যাই। সেখানে গিয়ে দেখি ছয়তলা ফ্ল্যাটটির ৫মতলায় গৃহবধূ শামসুন্নাহারের জবাই করা মরদেহ পড়ে আছে। আর ১৮ বছর বয়সী এক তরুণের মরদেহ পড়ে আছে ফ্ল্যাটের ৪তলার সিঁড়িতে। তবে এ বিষয়ে এখনও বিস্তারিত জানা যায়নি। স্থানীয় লোকজন জানান, সন্ধ্যার পর ওই বাসার দারোয়ান নোমান বাইরে এসে চিৎকার করলে হত্যাকান্ডের বিষয়টি জানাজানি হয়। এদিকে হত্যাকান্ডের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান পুলিশ,র‌্যাবসহ ও ডিবি সহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার কৃষ্ণপদ রায় বলেন, ঘরের ভেতরে রক্তাক্ত অবস্থায় এক নারী পড়েছিলেন। আর সিঁড়িতে পড়ে ছিলেন ১৮-২০ বছর বয়সী এক তরুণ। আমরা জেনেছি তারা সম্পর্কে মা-ছেলে। কয়েকজনকে এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া আর পাকিস্তানের সুর একই!

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া আর পাকিস্তানের সুর একই। এ অবস্থায় তাকে রাজাকার-জঙ্গিদের সঙ্গে পাকিস্তানের ট্রেনে তুলে দিলেই দেশে টেকসই রাজনীতি হবে। আজ বুধবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স রুম বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট-বিএনএফ আয়োজিত ‘বর্তমান রাজনীতি’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।

বিএনএফের কো-চেয়ারম্যান মমতাজ জাহান চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় বিএনএফের প্রেসিডেন্ট মুক্তিযোদ্ধা এস এম আবুল কালাম আজাদ এমপি প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন।

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেন, এ মুহূর্তে তিনটি বিতর্ক জাতীয় রাজনীতিকে আলোড়িত করছে-নির্বাচন বিতর্ক, রাজাকার-জঙ্গি বিতর্ক এবং একবার মুক্তিযোদ্ধা, আরেকবার রাজাকারের সরকার খেলার বিতর্ক। শান্তি, অগ্রগতি ও উন্নয়নের জন্য এ তিন বিতর্কে স্থায়ী সমাধান দরকার।

তিনি আরও বলেন, খালেদা জিয়া এখনো নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র, জঙ্গি-রাজাকারদের রাজনৈতিক সঙ্গী রাখা এবং রাজাকারদের নিয়ে ক্ষমতায় যাওয়ার চক্রান্ত করেই চলেছেন, সামরিকতন্ত্রের পক্ষে সাফাই গাইছেন এ কারণেই গণতন্ত্র এখনও নিরাপদ নয়।

আওয়ামী লীগের দরজা বন্ধ হবে বিদ্রোহীদের জন্য।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের আগামী নির্বাচনে প্রার্থিতার বিষয়ে বলেছেন, ‘’কে দাঁড়াল, এটা ব্যাপার নয়, নেত্রী যাকে দেবেন তাঁর সঙ্গে কাজ করতে হবে। বিদ্রোহীদের জন্য আওয়ামী লীগের দরজা বন্ধ হয়ে যাবে। দল করলে দলের আদর্শ মানতে হবে, দলের নিয়ম মানতে হবে, দলের প্রার্থীকে মানতে হবে।‘’

রাজশাহীতে আজ বুধবার ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সদস্য সংগ্রহ অভিযানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন।  রাজশাহী মেডিকেল কলেজ মিলনায়তনে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে রাজশাহী জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ।

নেতা-কর্মীদের সতর্ক করে দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘যারা অপকর্ম করে জনগণের কাছে অপছন্দের ও অগ্রহণযোগ্য, তাদের দল থেকে বের করে দিন। দল ভারী করার জন্য অপকর্মকারী কাউকে দলে টানবেন না। খারাপ লোক বাদ দিতে হবে, ভালো লোকদের সদস্য করতে হবে।’ এর সঙ্গে যোগ করেন, ‘উন্নয়ন যতই হোক, আচরণ খারাপ হলে উন্নয়ন ম্লান হয়ে যাবে। আচরণে যারা খারাপ আছেন, দয়া করে সংশোধন করুন।

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ‘দেশের অর্ধেক জনগোষ্ঠী নারী। আমাদের এবার প্রথম টার্গেট হচ্ছে নারী ভোটার। এরপর টার্গেট হচ্ছে প্রথমবারের মতো যারা ভোটার, মানে তরুণ ভোটার, এই দুই ক্যাটাগরির ভোটারদের ফোকাস করে সদস্য সংগ্রহ অভিযান চালাতে হবে।’

তিনি বলেন, রাজশাহীর যারা সৎ মানুষ, ভালো মানুষ, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী, গণতন্ত্রে বিশ্বাসী, বঙ্গবন্ধুকে ভালোবাসেন, তাদের আপনারা সদস্য করবেন। চিহ্নিত কোনো চাঁদাবাজ আওয়ামী লীগের সদস্য হতে পারবে না। দাগি কোনো অপরাধী, চিহ্নিত কোনো সন্ত্রাসী, অস্ত্রবাজ আওয়ামী লীগের সদস্য হতে পারবে না। চিহ্নিত কোনো ভূমিদস্যু, চিহ্নিত স্বাধীনতাবিরোধী কোনো অপশক্তি আওয়ামী লীগের সদস্য হতে পারবে না। এটা নেত্রীর নির্দেশ, বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নির্দেশ। এই নির্দেশনা আপনারা ফলো করবেন। আওয়ামী লীগ ভোটের জন্য নয়, আগামী প্রজন্মের জন্য রাজনীতি করে বলেও নেতাদের স্মরণ করিয়ে দেন তিনি।

রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, কেন্দ্রীয় সদস্য এস এম কামাল হোসেন, আমিনুল আলম মিলন, মেরিনা জাহান কবিতা, পারভীন জামান কল্পনা, জাহাঙ্গীর কবির রানা প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান, যুগ্ম সম্পাদক লায়েব উদ্দিন ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার। নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ওমর ফারুক চৌধুরীর সদস্যপদ নবায়নের মধ্যে দিয়ে এ কার্যক্রম শুরু হয়।